জরুরি চিকিৎসার জন্য ভারত যেতে পারবে বাংলাদেশিরা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদক:

মহামারি করোনাভাইরাসের চোখ রাঙানি ঠেকাতে প্রায় দেড় মাসের বেশি সময় ধরে ভারতের সঙ্গে স্থল সীমান্ত বন্ধ রয়েছে বাংলাদেশের। যার কারণে বিপাকে পড়েছেন জরুরি চিকিৎসার জন্য ভারত যেতে না পারা বাংলাদেশিরা। এমন পরিস্থিতিতে কেবল জরুরি চিকিৎসার জন্যই ভারত যাবার অনুমতি দিয়েছে  সরকার।

সোমবার (১৪ জুন) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও ভারতীয় হাইকমিশনার কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা যায়। দপররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক জ্যৈষ্ঠ কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ভারতের সঙ্গে আমাদের সীমান্ত বন্ধ রয়েছে। খুব জরুরি প্রয়োজনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পেলে বাংলাদেশিরা ভারত যেতে পারবে। তবে জরুরি চিকিৎসার বাহিরে কাউকে অনুমতি না দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।’

এ কর্মকর্তা আরও জানান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি নিয়ে ভারত যাওয়া বাংলাদেশিদের দেশে ফেরার ক্ষেত্রে মিশন থেকে এনওসি নিয়ে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন মানতে হবে।

বাংলাদেশে ভারতীয় ভিসা সেন্টারগুলো ভ্রমণ ভিসা ছাড়া সব ধরনের ভিসার আবেদন গ্রহণ করা হচ্ছে বলে সম্প্রতি ঘোষণা দিয়েছে ভারতীয় ভিসা অ্যাপ্লিকেশন সেন্টার (আইভেক)। জানা গেছে, দেশে ভারতীয় ১৫টি ভিসা সেন্টারের অধিকাংশগুলোতে সেবা চালু করা হয়েছে। তবে যেসব জেলায় কঠোর লকডাউন চলছে, ওইসব এলাকার ভিসা সেন্টারগুলো বন্ধ রয়েছে।

ভারতীয় হাইকমিশনের এক কর্মকর্তা জানান, ভিসা সেন্টারগুলোতে সেবা চালু থাকলেও বর্তমান পরিস্থিতিতে কেবল জরুরি চিকিৎসার জন্য ভিসা দেওয়া হচ্ছে।করোনা পরিস্থিতির কারণে গত ২৬ এপ্রিল থেকে ভারতের সঙ্গে ১৪ দিনের জন্য সব ধরনের স্থলসীমান্ত বন্ধ করে বাংলাদেশ। যা এখন পর্যন্ত চলমান রয়েছে। মঙ্গলবার (১৫ জুন) থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত ভারতের সঙ্গে আবারও ১৬ দিনের জন্য সীমান্ত বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে সরকার।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
শর্টলিংকঃ