পুঠিয়ায় প্রশাসনের ভুলে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি

  • 23
    Shares

পুঠিয়া প্রতিনিধি:

রাজশাহীর পুঠিয়ায় বিভিন্ন মিলে অভিযান চালিয়ে মানবদেহের ক্ষতিকারক ভেজাল মিশ্রিত ৩০১ বস্তা ডাউল জব্দ করেন ভ্রাম্যমান আদালত। পরে জব্দকৃত ২১৮ বস্তা ডাউল স্থানীয় একটি পুকুরে ঢেলে ধ্বংশ করা হয়। এতে ওই পুকুরে বিষক্রিয়া হয়ে প্রায় লক্ষাধিক টাকার মাছ মারা গেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) দুপুরে বানেশ্বর এলাকায় বিভিন্ন ডাউলমিলে অভিযান চালায় উপজেলা ভুমি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যজিষ্ট্রেট রুমানা আফরোজ। অভিযানে একটি ডাউলমিল থেকে মানবদেহের ক্ষতিকারক ভেজাল মিশ্রিত ২১৮ বস্তা জব্দ করে কলাহাটার নিকট আব্দুল রাজ্জাকের পুকুরে ঢেলে ধ্বংশ করা হয়।

পুকুর মালিক পরিবারের লোকজন অভিযোগ তুলে বলেন, মাঝারি মানের একটি পুকুরে এতো গুলো ডাউল ঢেলে দেয়ায় কয়েক ঘন্টার মধ্যে বিষক্রিয়া দেখা দিয়েছে। রাতেই বেশীর ভাগ মাছ মারা গেছে। পরে আজ খুব ভোরে জেলে ডেকে পুকুরের মাছ গুলো ধরে কম দামে বিক্রি করতে হয়েছে। এতে করে আমাদের প্রায় লক্ষাধিক টাকা লোকসান হয়েছে।

বানেশ্বর ইউপি চেয়ারম্যান গাজি সুলতান বলেন, প্রশাসন জব্দকৃত ডাউল গুলো পুকুরে ঢেলে দিয়ে চলে আসেন। এরপর স্থানীয় লোকজন পুকুরে নেমে ফেলে দেয়া কিছু ডাউল গুলো তুলে এনেছেন। এতে ওই পুকুরে বিষক্রিয়া হয়ে মাছ গুলো ভেসে উঠে। পরে পুকুর মালিক মাছ গুলো তুলে বাজারে বিক্রি করেছেন।

উপজেলা ভুমি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট রুমানা আফরোজ-এর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট ওলিউজ্জামান বলেন, জব্দকৃত ডাউল গুলো ধ্বংশ করতে কাছাকাছি ওই পুকুরটি ছিল। সে সময় স্থানীয় ইউপি সদস্য মালেক মেম্বারের পরিবারের ওই পুকুরটিতে তার অনুমতিক্রমে ডাউল গুলো ধ্বংশ করা হয়। এতে করে ওই পুকুরে থাকা মাছের কোনো ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে কিনা সে বিষয়ে পুকুর মালিক আমাদের কাছে জানায়নি। তবে তিনি ক্ষতিপুরণ দাবী করলে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নেব।

 


  • 23
    Shares
শর্টলিংকঃ