অশ্বিনের বলের জাদু দিয়েই ম্যাচ নিয়ন্ত্রণ ভারতের

  • 1
    Share

ঘরের মাঠে বরাবরই অপ্রতিরোধ্য ভারতীয় ক্রিকেট দল। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আরও একবার এর প্রমাণ দিচ্ছে বিরাট কোহলির দল। বিশাখাপত্তম টেস্টের দুই দিনেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে নিয়ে ফেলেছে স্বাগতিকরা।

দ্বিতীয় দিনের শুরুটা ছিলো মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ব্যাটের দ্যুতিময় আর শেষটা হয়েছে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের স্পিন ঘূর্ণিময়। এ দুইয়ের নৈপুণ্যেই প্রোটিয়াদের চেপে ধরেছে ভারত।

মায়াঙ্কের ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরিতে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৭ উইকেট হারিয়ে ৫০২ রানে ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। রোহিত শর্মা ১৭৬ রানে আউট হলেও, নিজের প্রথম সেঞ্চুরিকে ডাবল সেঞ্চুরিতে রূপ দেয়া মায়াঙ্ক খেলেন ২১৬ রানের ইনিংস।

পরে শেষ সেশনে ২০ ওভারের জন্য ব্যাট করতে নামে দক্ষিণ আফ্রিকা। তাতেই ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে তারা, স্কোরবোর্ডে জমা পড়েছে মাত্র ৩৯ রান। এর মধ্যে ৮ ওভার বোলিং করে মাত্র ৯ রান খরচায় ২ উইকেট নিয়েছেন অশ্বিন, অন্যটি গিয়েছে রবিন্দ্র জাদেজার ঝুলিতে। এখনও ৪৬৩ রানে পিছিয়ে প্রোটিয়ারা।

বৃষ্টির কারণে ম্যাচের প্রথম দিন শেষ সেশনের খেলা হয়নি। ৫৯.১ ওভার ব্যাট করে বিনা উইকেটে ২০২ রান সংগ্রহ করেছিল ভারত। সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে রোহিত অপরাজিত ছিলেন ১১৫ রানে, মায়াঙ্কের সংগ্রহ তখন ৮৪ রান।

দ্বিতীয় দিন সকালে ঠিক প্রথম দিনের মতোই খেলতে থাকেন দুই ওপেনার। উদ্বোধনী জুটিটাকে নিয়ে যান ৩১৭ রান পর্যন্ত। নিজের সেঞ্চুরিকে দেড়শতে পরিণত করে দ্বিশতকের খুব কাছে চলে গিয়েছিলেন রোহিত। কিন্তু কুইন্টন ডি ককের চতুরতায় স্টাম্পিংয়ে ধরা পড়ে যান। আউট হওয়ার আগে ২৪৪ বলে ২৩ চার ও ৬ ছক্কার মারে ১৭৬ রান করেন রোহিত।

পরে তিন নম্বরে নেমে পুজারা ৬ ও চারে নেমে অধিনায়ক কোহলি থামেন মাত্র ২০ রান করে। অপরপ্রান্তে অবিচল ছিলেন মায়াঙ্ক। পুজারা-কোহলির মতো আজিঙ্কা রাহানেও (১৫) তেমন একটা সঙ্গ দেননি। তবে এতে কোনো সমস্যা হয়নি মাত্র পঞ্চম টেস্ট খেলতে নামা মায়াঙ্কের।

ভারতের ইতিহাসের চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজের প্রথম সেঞ্চুরিকে ডাবল সেঞ্চুরিতে রূপ দেন মায়াঙ্ক। পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে রোহিতের সমান ২৩ চার ও ৬ ছক্কার মারে ৩৭১ বল খেলে ২১৫ রান করেন এ ডানহাতি ওপেনার।

এরপর রবিন্দ্র জাদেজার অপরাজিত ৩০ রানের ইনিংসে দলীয় সংগ্রহ ৫০০ পেরুতেই ইনিংস ঘোষণা করেন ভারতীয় অধিনায়ক। দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন কেশভ মহারাজ।


  • 1
    Share
শর্টলিংকঃ