ধর্ষণের অভিযোগে রাবি শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের দাবি

  • 156
    Shares

রাবি প্রতিনিধি:

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত মাহফুজুর রহমান সারদকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবন বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা। বুধবার দুপরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন থেকে তারা এ দাবি করে।

এসময় শিক্ষার্থীরা ছয়দফা দাবি উত্থাপন করেন। তাদের দাবিগুলো হলো- বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়ন সেল কার্যকারিতা বৃদ্ধি, অপরাধী যাতে আইনের ফাঁক-ফোকর দিয়ে বেরিয়ে আসতে না পারে তা নিশ্চিত করা, নারী বান্ধব ক্যাম্পাস, বহিরাগতদের চলাচলে নিয়ন্ত্রন, ক্যাম্পাসে মোটসাইকেলের সর্বোচ্চ গতি ২০কি.মি করা।

অভিযুক্ত শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়ে বক্তারা বলেন, জনগনের নিরাপত্তা নিশ্চিতের দায়িত্ব রাষ্ট্রের। অথচ সেই নিরাপত্তার জন্য আজ রাস্তায় দাড়াতে হচ্ছে। বিভিন্ন সময় ধর্ষণের দায়ে মেয়েদের পোশাকের সমালোচনা করা হয়। এর মাধ্যমে প্রকারান্তে ধর্ষকদের দোষকে খাটো করে দেখা হয়। এসময় মেয়েরা ঘরে বাইরে কোথাও নিরাপদ নয় উল্লেখ করে ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড দাবি করেন বক্তারা।

উল্লেখ্য, পাঁচ মাস পূর্বে ভুক্তভোগী ছাত্রীর সঙ্গে বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে তোলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সারদ। গত ২৪ জানুয়ারি ভুক্তভোগীর সঙ্গে জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক করে সারদ। পরে সারদ তার বন্ধুদের দিয়ে কৌশলে এর ভিডিও ধারণ করান। পরে সারদ তার বন্ধুদের দিয়ে ওই ছাত্রীর কাছে পঞ্চাশ হাজার টাকা দাবি করেন। এরই প্রেক্ষিতে ২৭ জানুয়ারি সারদসহ ছয়জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন ওই ছাত্রী। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে সারদ ও তার বন্ধু প্লাবন, রাফসান, জীবন ও জয়কে গ্রেপ্তার করে। পরে দুই দিন রিমান্ড শেষে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।


  • 156
    Shares
শর্টলিংকঃ