রামেকে এবার মাস্ক পরে রক্তদাতার টাকা চুরি

  • 3
    Shares

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ওয়ার্ড থেকে নবজাতক চুরির ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই ব্লাড ব্যাংক থেকে এবার এক রক্তদাতার পকেট থেকে ১০ হাজার টাকা চুরির ঘটনা ঘটেছে। রোববার বিকালে চুরির এই ঘটনা ঘটে বলে দাবি করেছেন নাটোর থেকে আসা এক ব্যক্তি।

অভিযোগ পেয়ে সিসি ক্যামেরাতে চোর শনাক্তের চেষ্টা করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু সোমবার দুপুর পর্যন্ত চোরকে শনাক্ত করা যায়নি। কারণ চোরের মুখে মাস্ক ছিল।

অভিযোগে জানা গেছে, নাটোরের করটা এলাকার সুমনা নামের এক নারী গত ২৩ জানুয়ারি সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হন। তাকে ওইদিনই রামেক হাসপাতালের ৮নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। রোগীর আত্মীয় আব্দুর রৌফ রক্ত দিতে রোববার নাটোর থেকে রাজশাহীতে আসেন। রক্তদান শেষে রৌফ কিছুক্ষণ পেমেন্ট শাখায় বসেন। এ সময় এক অচেনা ব্যক্তি তার পাশে গিয়ে বসেন। এই সুযোগে চোর আব্দুর রৌফের জ্যাকেটের পকেটে থাকা ১০ হাজার টাকা টেনে নিয়ে চম্পট দেন।

টাকা চুরির বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে আব্দুর রৌফ, তার ভাই আব্দুর রহিম ও ভাগ্নি ঝরণা খাতুন রামেক হাসপাতালের পরিচালকের সহকারী সমুনের কাছে অভিযোগ দেন। তবে চেষ্টা করেও চোরকে শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।

তবে হাসপাতালের একজন উপ-পরিচালক জানান, আসলে ওই ব্যক্তিটি একজন পকেটমার হতে পারেন। পাশে বসে পকেট থেকে টাকা টেনে নিয়ে পালিয়েছে।

এদিকে আব্দুর রৌফ বলেন, দালাল, চোর ও পকেটমার রোধে টিকিট বা পাশের ব্যবস্থা করা হলেও রামেক হাসপাতালে চোর ও পকেটমারের উপদ্রুব বেড়েছে।

উল্লেখ্য, গত চারদিন আগে ওয়ার্ড থেকে এক নবজাতক চুরির ঘটনা ঘটে। গত ২৩ জানুয়ারি তিনদিন পর পুলিশ অবশ্য চুরি যাওয়া নবজাতককে উদ্ধার করেন।

রাজপাড়া থানার ওসি মাজহারুল ইসলাম জানান, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে দালালমুক্ত করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।


  • 3
    Shares
শর্টলিংকঃ