তানোরে জায়গা দখলের জন্য বাড়ি-ঘর ভাংচুর, লুটপাট

  • 5
    Shares

তানোর প্রতিনিধি:

তানোরে আদিবাসী ২নারীর জায়গা দখলের জন্য বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও গাছ কেটে নেয়ার ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় এবং অব্যাহত হুমকির মুখে কোথাও অভিযোগ করার সাহস পাচ্ছেনা দরিদ্র ওই দুই আদিবাসী নারী। এ ঘটনায় আদিবাসী পল্লীতে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় দুপক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা দেখা দিয়েছে।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী আদিবাসীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, তানোর উপজেলার কোয়েল হাট বইরাগি আদিবাসী পাড়ার কোয়েল হাট মৌজায় আরএস খতিয়ান নং ৪৯৪, দাগ নং ৪২৭, জে-এল নং ৯০, ১৪শতাংশ জমি খতিয়ান মুলে জমির মালিক রাবণ মাঝি। রাবণ মাঝির ওয়ারিশ সূত্রে উক্ত সম্পত্তি মালিক রাবণ মাঝির নাতনি সনতি মুর্মু ও আমেনা মুর্মু।

উক্ত সম্পত্তির উপর ঘর-বাড়ি নির্মাণ করে দীর্ঘদিন ধরে সনতি মুর্মু ও আমেনা মুর্মু তার পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। গত বুধবার সকালে হঠাৎ একই গ্রামের মৃত রুপাই মুর্মুর পুত্র সরকার মুর্মু লাঠি-সোটা, হাঁসুয়া বল্লম ও ধারালো অস্ত্রসহ ৩০/৪০জন ভাড়াটিয়াদেরকে সাথে নিয়ে সনতি মুর্মু ও আমেনা মুর্মুর বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ি-ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে এবং বাড়ির সামনের বেশ কয়েকটি ফলজগাছ কেটে নেয়।

অস্ত্রের মুখে কেউ বাধা দিতে পারেননি বলে জানান গ্রামবাসীসহ আদিবাসী পল্লীর আদিবাসীরা। অপর দিকে হামলাকারীদের অব্যাহত হুমকির মুখে দরিদ্র আদিবাসী সনতি মুর্মু ও আশেনা মুর্মু কোথাও অভিযোগ করার সাহস পাচ্ছেন না। বিষয়টি নিয়ে আদিবাসী পল্লীর আদিবাসীসহ গ্রামবাসী ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি ও হস্থক্ষেপ কামনা করেছেন।

এব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে তানোর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খাইরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই এবং এ ঘটনায় কেউ কোন অভিযোগ করেননি। অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।


  • 5
    Shares
শর্টলিংকঃ