বিরল রোগে আক্রান্ত টাঙ্গাইলের আদু

  • 4
    Shares

ইউএনভি ডেস্ক:

টাঙ্গাইলের মধুপুরে বিরল রোগে আক্রান্ত মো. আব্দুল হাই ওরফে আদু (২০)। সে উপজেলার মহিষমারা ইউনিয়নের শালিকা গ্রামের নূরুল ইসলামের ছেলে। তার নাম আব্দুল হাই হলেও গ্রামের সবাই তাকে আদু বলে ডাকে।

আদুর বাম চোখের উপর থেকে গাল বেয়ে মাংস ঝুলে পড়েছে। অচেনা কেউ আদুকে দেখলেই ভয় পায়। বাড়ির পাশে মনোহারী দোকান দিয়ে বসেছে সে। তার নামানুসারে যেখানে তার দোকান সেখানকার নাম ‘আদুর মোড়’ দিয়েছেন স্থানীয়রা।

আদুর বাবা নূরুল ইসলাম বলেন, জন্মের পর ভালোই ছিল আদু। কিন্তু পাঁচ বছর পর থেকেই হঠাৎ করে ওর বাম চোখে চুলকানি হয়। চোখ দিয়ে পানি পড়ে। মধুপুর নিয়ে হোমিও ওষুধ খাওয়ালে কয়েকদিন পর আক্রান্ত চোখ ফেঁটে রক্ত পড়া শুরু করে।

পরে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয় আদুকে। টানা একমাস চিকিৎসার পর তাকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। অস্বচ্ছল পরিবার হওয়ায় আর চিকিৎসা করানো হয়নি তাকে।

আদুর ৭-৮ বছর বয়স থেকে আস্তে আস্তে চোখ ঢেকে মাংস ঝুলে পড়তে থাকে। ক্রমে মুখের বাম পাশের পুরোটাই বিকৃত হয়ে যায়। অবশেষে চিকিৎসা ছেড়েই দেন দরিদ্র পিতা-মাতা। প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা ও মনোহারী দোকানের সামান্য আয় দিয়েই চলে আদুর সংসার।

আদু জানায়, বাইরে বের হলে লোকজনের মাঝে বিব্রত হতে হয়। তার ডান পাও ভেঙে পঙ্গু হয়ে গেছে। লাঠিতে ভর করে চলতে হয়। বড় ভাই বিয়ে করে আলাদা সংসার করছেন। ছোট বোনকে পড়াশোনা করাচ্ছেন এভাবেই। আক্রান্ত স্থানে কোনো ব্যথা নেই, তবে মাঝে মাঝে বাম চোখ দিয়ে পানি ঝরে।

মহিষমারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী আব্দুল মোতালেব জানান, বিরল রোগে আক্রান্ত আদুকে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে প্রতিবন্ধী ভাতার ব্যবস্থা করা হয়েছে। উন্নত চিকিৎসা পেলে হয়তো সে ভালো হয়ে যাবে।


  • 4
    Shares
শর্টলিংকঃ