দাবি আদায়ে কর্মবিরতিতে ইবি কর্মকর্তারা

  • 3
    Shares

ইবি প্রতিনিধি:
বেতন স্কেল ও চাকরির বয়সসীমা পুনঃনির্ধারণসহ তিন দফা দাবি আদায়ে কর্মবিরতি পালন করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) কর্মকর্তারা। বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা সমিতির উদ্যোগে সোমবার (২ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টা থেকে প্রশাসন ভবন চত্বরে অবস্থান কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে কর্মবিরতি শুরু করেন তারা।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি শামসুল ইসলাম জোহা ও সাধারণ সম্পাদক মীর মোর্শেদুর রহমানের নেতৃত্বে সহ-সভাপতি এ কে এম শরীফুদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মীর মোর্শেদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহানুর আলমসহ বিভিন্ন অফিসের প্রায় দুই শতাধিক কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা সমিতির সভাপতি শামসুল ইসলাম জোহা বলেন, ‘আমাদের এ দাবি দীর্ঘদিনের। দাবি আদায়ের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আমাদের মাঠে নামতে বাধ্য করেছে। পূর্বনির্ধারিত ঘোষণা অনুযায়ী আজ কর্মবিরতির পাশাপাশি আমরা প্রতিবাদ সভাও করেছি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত কর্মবিরতি চলবে।’

 

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারী বলেন, ‘অফিস টাইম কমানো কখনই সম্ভব না। কেননা অফিস টাইম বাড়ানো একটি গণ দাবি। আর চাকরির বসয়সীমা ৬২ করার বিষয়টি সম্পর্কে আমি একমত। এ বিষয়ে একটি নীতিমালা (পেনশন নীতিমালা) করা হয়েছে। যেটি প্রক্রিয়াধীন।’

বেতন স্কেলের বিষয়ে উপাচার্য বলেন, ‘আমরা এ বিষয়ে একটি কমিটি করেছিলাম। কমিটি সুপারিশ করছে, যেহেতু দাবিটি কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় আছে সেহেতু একটি সুনির্দিষ্ট নীতিমালা করে বিষয়টি দেয়া যেতে পারে। সিন্ডিকেট সেটি গ্রহণ করেছে। তাই এ বিষয়ে আমরা সুনির্দিষ্ট নীতিমালার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিবো।’

উল্লেখ্য, পূর্বের ন্যায় ক্যাম্পাসের কর্মঘণ্টা সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত নির্ধারণ, বেতন বৈষম্য দূরীকরণ ও চাকরির বয়সসীমা ৬২ বছরে উন্নীত করার দাবিতে গত বছরের ডিসেম্বর থেকে আন্দোলন করে আসছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্মকর্তা সমিতি।


  • 3
    Shares
শর্টলিংকঃ