রুয়েট ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় অটোচালক গ্রেপ্তার


নিজস্ব প্রতিবেদক:

রুয়েট ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালককে গ্রেপ্তার করেছে রাজশাহী মেট্রপলিটন পুলিশ। মঙ্গলবার( ২৭ আগস্ট) সন্ধ্যায় পুলিশ শামসু ডলার ওরফে সুমন (৩৫) নামের ওই আটচালকে গ্রেপ্তার করা হয়। সে নগরীর ভেড়ীপাড়া এলাকার মৃত আমান উল্লাহ রেন্টুর ছেলে।

রাজশাহী মেট্রপলিটন পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশানর গোলাম রুহুল কুদ্দুস ইউনিভার্সাল২৪নিউজ-কে জানান, সোশাল মিডিয়ায় আলোচিত রুয়েট ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনাটি তারা গুরুত্বের সাথে তদন্ত শুরু করেন। তদন্তে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাটিকে শনাক্ত করা হয়। অটোটির পিছনে সাদা রঙ দিয়ে বড় করে ‘আল্লাহু আকবার, সাদিয়া, তাওসিক পরিবহণ, নামাজ কায়েম করুন’ লিখা আছে)। যা দেখে অটোটিকে শনাক্ত করতে সুবিধা হয়।

আরএমপির মুখপাত্র আরও জানান, গ্রেপ্তারকৃত সুমন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে যে, ওইদিন ছাত্রী তার অটোরিকশায় ছিলেন। তবে ছাত্রী যে অভিযোগ করেছেন তা সঠিক নয়। আর অটোতে থাকা অন্য অভিযুক্ত যাত্রীদের কাউকেই চেনে না সে। তবে মামলা তদন্তের স্বার্থে ঘটনার সঙ্গে অপর অভিযুক্ত যাত্রীদের চিহ্নিত করতে আদালতের মাধ্যমে সুমনকে সাতদিনের পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানানো হবে।

রুয়েটের ওই ছাত্রী ঘটনার দিন সন্ধ্যায় ফেসবুকে অভিযোগ করেন,  চলন্ত অটোরিকশায় অপরিচিত কয়েকজন যাত্রী তার শ্লীলতাহানি করে। এসময় তিনি চালককে অটোরিকশা থামাতে বললেও চালক তা করেননি। পরবর্তীত নগর ভবনের কাছে তাকে অটো থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়। ফেসবুকে তাৎক্ষণিক বিষয়টি ভাইরাল হয়। পরদিন ( ২০ আগস্ট) নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী ছাত্রী।

Print Friendly, PDF & Email

শর্টলিংকঃ